কিশোরগঞ্জে আরও ২৫ জনের করোনা শনাক্ত, সদর উপজেলায় ১৩

সাতকাহন রিপোর্ট

করোনা সংক্রমণে স্বাস্থ্য অধিদফতর চিহ্নিত ঝুঁকিপূর্ণ জেলা কিশোরগঞ্জে ২৪ ঘণ্টায় ২০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে নতুন করে ২৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত মোট ৪৯৯১ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ চিহ্নিত হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২০ জন।

বৃহস্পতিবার নতুন করে করোনা সংক্রমণ শনাক্তের এ তালিকায় জেলার সদর উপজেলায় ১৩ জন, তাড়াইল উপজেলায় ২ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ১ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ৬ জন, ভৈরব উপজেলায় ২ জন ও বাজিতপুর উপজেলায় ১জন রয়েছেন।

এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত মোট ৪৯৯১ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ চিহ্নিত হয়েছে।

জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান বৃহস্পতিবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নতুন করে এ ২৫ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ সনাক্ত হওয়ার পর এ জেলায় করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৯৯১ জনে।

তবে, এদের অধিকাংশই ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে ওঠেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

আর এ সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী কিশোরগঞ্জ জেলার উপজেলা ভিত্তিক এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে, সদর উপজেলার ১৯৬৯ জন, হোসেনপুর উপজেলার ১৩২ জন, করিমগঞ্জ উপজেলায় ১৯৮ জন, তাড়াইল উপজেলায় ১৪৮ জন, পাকুন্দিয়ায় উপজেলায় ২৪৮ জন, কটিয়াদী উপজেলায় ৩৪৬ জন, কুলিয়ারচর উপজেলায় ২১৮ জন, ভৈরব উপজেলায় ১১১৮ জন, নিকলী উপজেলায় ৬৯ জন, বাজিতপুর উপজেলায় ৩৯৩ জন, ইটনা উপজেলায় ৪৬ জন, মিঠামইন উপজেলায় ৬২ জন, ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় ৪৪ জন।

সূত্রমতে, আক্রান্তদের মধ্যে ৪৭২০ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছেন। বাকিরা আইসোলেশন কিংবা হোম কোয়ারেন্টিনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের শিকার হয়ে কিশোরগঞ্জ জেলায় শিশু, যুবকসহ বিভিন্ন বয়সের ৮৫ জন নারী-পুরুষের মৃত্যু হয়েছে।