রাস্তার পাশে মিললো কলাপাতায় মোড়ানো জীবন্ত নবজাতক!

সাতকাহন রিপোর্ট

মধ্যরাতে রাস্তার পাশে মিললো কলাপাতায় মোড়ানো চাঁদমুখ জীবন্ত নবজাতক। ঘুটঘুটে অন্ধকারে শিশুর আর্ত চিৎকার শুনে পথচারী লোকজন এগিয়ে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

রোববার দিবাগত রাত ১২ টার দিকে কি‌শোরগঞ্জ সদর উপ‌জেলার মাইজখাপন ইউনিয়‌নের বড়খাপন এলাকার রাস্তার পাশ থেকে এ  নবজাতকটি উদ্ধার করা হয়।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, রাতে নির্জন রাস্তার পা‌শে নবজাত‌কের কান্না শুন‌তে পান ক‌য়েকজন পথচারী  গ্রামবাসী। পরে তারা কান্নার আওয়াজ অনুসরণ করে রাস্তার পাশ থেকে কলাপাতায় মোড়ানো অবস্থায় এ চাঁদমুখ ছেলে শিশু  নবজাতককে  উদ্ধার করেন।

স্থানীয়  ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যের  সহ‌যো‌গিতায় নবজাতকটিকে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনা‌রেল হাসপাতা‌লে ভ‌র্তি করা হয়। ‌শিশু‌টি‌কে ওই হাসপাতা‌লের নবজাতক ওযা‌র্ডের ইন‌টেন‌সিভ কেয়ার ইউনিটে রেখে চি‌কিৎসা দেওয়া হ‌চ্ছে হাসপাতা‌লের নার্সদের পাশাপাশি বড়খাপন গ্রা‌মের নিঃসন্তান এক নারী তার তদারকি কর‌ছেন।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, পিঁপড়ের  কাম‌ড়ে শিশুটি কিছুটা আহত হ‌য়। এ ছাড়াও বাম পা‌য়ে সামান্য আঘা‌তের চিহ্ন রয়েছে।

কি‌শোরগঞ্জ থানার ওসি আবুবকর সি‌দ্দিক জানান, পু‌লিশ ও প্রশাস‌নের তত্ত্বাবধা‌নে শিশু‌টি‌কে চি‌কিৎসা দেওয়া হ‌চ্ছে। সমাজ‌সেবা বিভা‌গের সা‌থে কথা বলে শিশু‌টিকে পুনর্বাসনের  বিষ‌য়ে সিদ্ধান্ত নিবে প্রশাসন।

এ ব্যাপারে কথা হলে কিশোরগঞ্জের সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ কামরুজ্জামান-এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি যুগান্তরকে জানান, তারা এ বিষয়ে থানায় জিডি করছেন এবং পরবর্তীতে আদালতের অনুমতি সাপেক্ষে নবজাতকটিকে ঢাকার আজিমপুরে "ছোট মণি" নিবাসে প্রেরণের কার্যক্রম শুরু করেছেন। এ ছাড়া তার যাবতীয় ওষুধ-পথ্যাদি-খাবার-পোষাক  সমাজসেবা অধিদপ্তর সরবরাহ করছে।