বিজয়ী দলকে উপহার হিসাবে দেওয়া হলো মহিষ

ভৈরব প্রতিনিধি
প্রীতি ফুটবল খেলার আয়োজন হয় কিশোরগঞ্জের ভৈরবে

বর্ষায় বৃষ্টির পানি জমে থাকা মাঠে ফুটবল খেলার মজাই আলাদা। সে মজায় মেতে ওঠেন গ্রামের দামাল ছেলেরা। এ বর্ষা মৌসুমে গ্রামে গ্রামে আয়োজন হয় ফুটবল খেলার। তেমনই এক প্রীতি ফুটবল খেলার আয়োজন হয় কিশোরগঞ্জের ভৈরবে।

তবে সে খেলায় ব্যতিক্রমী এক উপহার দেয় আয়োজক কমিটি। আস্ত এক ‘মহিষ’ উপহার দেওয়া হয় বিজয়ী দলকে।

রোববার বিকেলে উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের রসুলপুর মধ্যপাড়া হাজী কালু মিয়া বাড়ির আয়োজনে এ প্রীতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়।

খেলায় রসুলপুর মধ্যপাড়া এলাকার হাজী কালু মিয়া বাড়ির ছোট দল ও বড় দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে দুটি দল অংশগ্রহণ করে। খেলায় নির্ধারিত সময়ে বড় দলকে ২-৫ গোলে হারিয়ে বিজীয় হয় ছোট দল।

খেলা শেষে বিজয়ী দলের খেলোয়াড়দের হাতে একটি মহিষ তুলে দেওয়া আয়োজক কমিটি। তবে পরাজিত দলের জন্য ছিল না কোনো উপহার।

প্রীতি ফুটবল খেলায় রসুলপুর মধ্যপাড়া মো. জাহাঙ্গীর আলম সরকারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভৈরব বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী হাজী মো. কুলু মিয়া। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মো. মুজিবুর রহমান, মোক্তার হোসেন, মাসুম মিয়া, সুলায়মান গণি, হারুন মিয়া, রাশিদ মিয়া ও ওমর ফারুক প্রমুখ।

এ সময় এলাকার বিভিন্ন বয়সী কয়েক শ নারী-পুরুষ মাঠে উপস্থিত হয়ে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ উপভোগ করেন।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত